Translate

World Best SEO Marketplace.

Tuesday, February 4, 2020

কিভাবে ইবিএল আকুয়া মাষ্টারকার্ডের ক্রেডিট কার্ড স্লিপ পূরন করবেন?

আপনার যদি পাসেপার্ট থাকে তাহলে আপনি সহজেই ইবিএল এর আকুয়া মাষ্টারকার্ড গ্রহন করতে পারবেন যা দিয়ে আপনি অতি সহজে অনলাইনে কেনাকাটা করতে পারবেন।



এখানে যে ছবি দেয়া আছে সেখানে ক্লিক করলে আপনি ইবিএল এর ওয়েবসাইটে ঢুকে ডিটেইলস দেখতে পারবেন এবং জানতে পারবনে কিভাবে আপনি পাসপোর্টে এনডোর্সমেন্ট করে ইবিএল ডুয়াল কারেন্সী মাষ্টারকার্ড  ডেবিট কার্ড গ্রহন করবেন যাতে আপনি সহজেই দেশে বা বিদেশে যে কোন খান থেকে মাষ্টারকার্ড লোগো থাকলে এটিএম বুথ থেকে উইথড্র করতে পারবেন একই সাথে সমস্ত অনলাইন পোর্টাল থেকে কেনা কাটা ও করতে পারবেন। নীচে একটা ইমেজের মাধ্যমে বুঝাইয়া দেয়া হলো  আপনি কিভাবে ব্যাংকে যাইয়া টাকা লোডের মাধ্যমে টাকাকে ডলারে কনভার্ট করতে পারবেন এবং সেটা অনলাইনে খরচ করতে পারবেন। 


এখানে ব্যাংকে যাবার পরে আপনাকে এই খালি স্লিপ টা দেবে বা এটা আপনি কালেকশন ও করে নিতে পারবেন বা পূর্বে থেকে নেয়া থাকলে আপনি সেটা ফিলআপ করেও নিয়ে আসতে পারেন। উপরে েএকটা খালি ফর্ম দেখানো হলো। আর নীচে ফিলআপ করা ফর্ম দেখানো হলো।
 

প্রথমে আপনার পুরো নাম দিবেন।
তারপরে আপনার নামে বরাদ্দ ইন্টারন্যাশণার মাষ্টারকার্ডের ১৬ ডিজিটের নাম্বারটা দিবেন। 
উপরে ডানদিকে তারিখ লিখে দিবেন। 
তারপরে আপনি যদি ডলারে লোড করতে চান তাহলে ডলারে র এমাউন্ট লিখবেন বা
আমি ডেহেতু টাকাকে ডলারে কনভার্ট করবো সেহেতু আমি এখানে টাকার এমাউন্ট লিখবো।
যে পরিমান টাকা আমি জমা দিবো সেই পরিমান টাকা সেই দিনের ভ্যাংক রেটে ডলারে কনভার্ট হয় আমার কার্ডে লোড হবে এবং সেটা আপনার ম্যাসেজ সার্ভিস চালূ থাকলে আপনার কাছে ম্যিাসেজ হিসাবে দেখাবে। 
টাকার অংক টা ইংরেজীতে লিখতে হবে কথায়।
নীচে মোবাইল ফোন নাম্বার লিখতে হবে।
তারপরে সিগনেচার দিতে হবে।
তারপরে টাকা কে একসাথে করে কাউন্টারে দাড়াদে হবে এবং টাকা জমা দিলে আপনার একাউন্টে ডলার লোড হবে। 

[নোট: মনে রাখবেন পাসপোর্ট ছাড়া আপনি এই ফ্যাসিলিটিজ টা পাবেন না।]

এখানে উল্লেখ্য যে আপনি ১২০০০ ডরার খরচ করতে পারবেন সারা বিশ্বের যে কোন খানে এই কার্ডের মাধ্যমে। আরো একটা ব্যাংক আছে - ব্যাংক এশিয়া। যাদের কাছে ফ্রি ল্যান্সার রা তাদের প্রোফাইল এবং ফেসবুকের পেজের লিংক দিয়েও এই কার্ড সংগ্রহ করতে পারবেন যা আপনার সমস্ত ধরনের অনলাইন কেনাকাটা করতে সাহায্য করবে। আপনি কখন কোথায় কতো ডলার কেনাকাটা করতাছেন ইন্টারনেট থেকে তার একটা হিসাব ও অলওয়েজ বাংলাদেশ  ব্যাংকের কাছে থাকবে।

যতোক্ষন আপনার কার্ডে ডলার লোড থাকবে ততোক্ষন আপনি খরচ করতে পারবেন। আর যারা বড় সড় ব্যাবসায়ী বা প্রচুর সম্পদের মালিক বা অনেক উচ্চ পদে চাকুরী করেন তারা ব্যাংকে যে কোন সময়ে তারে সম্পদ বা চাকুরীর ডিটেইলস জমা দিয়ে বা নগদ টাকা জমা দিয়েও ইন্টারন্যাশনাল ক্রেডিট কার্ড নিতে পারেন। এইটা একদমই সহজ একটা পন্থা। এ ক্ষেত্রে বিদেশে যাবার ক্ষেত্রে বা বিদেশে খরচের ক্ষেত্রে  আপনি একটা বিশাল ফ্যাসিলিটিজ আছে। 

ইবিএল কে ধন্যবাদ আমাদের ফ্রি ল্যান্সারদের ক্রেডিট কার্ড (ডুয়াল কারেন্সী) এবং সারা বিশ্বে   অনলাইন কেনাকাটার ফ্যাসিলিটিজ দেবার জন্য। 


No comments:

Post a Comment

masudbcl

$$ Forum post $$ Blog Comment $$

Earn Money Posting in Forums