Translate

Saturday, February 29, 2020

Thursday, February 27, 2020

ইন্টারনেট যে কোন বিষয়ে রিপোর্টিং.

অর্ডার বলতে কি বোঝেন?

যে কোন মার্কেটপ্লেসে নতুন করে কাজ পাওয়াকে অর্ডার বলে। আমরা সাধারনত যে ধরনের মার্কেটপ্লেস ওয়েবসাইটে কাজ করি সেগুলোর মধ্যে রয়েছে-


এছাড়াও রয়েছে আরো হাজার হাজার ওয়েবসাইট। যে যে মার্কেটপ্লেসে কাজ করে এবং যার কাছে যে মার্কেটপ্লেস ভালো লাগে। আপনার যদি একটা মার্কেটপ্লেসে একবার সেট আপ হয়ে যায় তবে দেখা যায় সেখান থেকে ক্রমাগত কাজ পাওয়া সহজ হয়ে যায়। একটা মার্কেটপ্লেসের যতো ল আছে সব লই পালন করা লাগবে নয়তো সেই মার্কেটপ্লেসে আপনার একাউন্ট ওকে থাকবে না। মার্কেটপ্লেসে আপনাকে ক্লায়েন্ট বা বায়ারের সমস্ত রুলস মেনে কাজ করতে হবে। আমি ২০১১ পর্যন্ত ওডেস্ক, ইল্যান্স এবং ফ্রি ল্যান্সার ডট কম এবং গুরু ডট কমে কাজ করেছি। কিন্তু এখন বিগত ০৯ বছর যাবত শুধু SEOClerk এ কাজ করতাছি। কি কি সুবিধা আছে SEOClerk চলেন তা একবার দেখে নেই: 

SEOClerks
  • SEOClerk মার্কেটপ্লেসে আপনি একাধারে একজন বায়ার, একজন সেলার এবং একজন ট্রেডার হিসাবে কাজ করতে পারবেন। বায়ার হিসাবে আপনি যে কারো সার্ভিস কিনতে পারবেন ব্যালান্স এভেইলেবল থাকা স্বাপেক্ষে। ব্যালান্স এভেইলেবল না থাকলে আপনি তাৎক্ষনিক ভাবে ব্যালান্স আপলোড করে নিতে পারবেন ক্রেডিট কার্ড বা পেপাল ডট কম বা বিটকয়েনের মাধ্যমে। বিটকয়েনের সাথে বাংলাদেশ ব্যাংকের লেনাদেনা করা নিষেধ। কিন্তু বাংলাদেশের ভেতরে অনেকেই বিটকয়েন পারস্পরিক লেনাদেনা করে থাকে। পারস্পরিক লেনাদেনা মে বি নিষেধ না। বিটকয়েন রিলেটেড অনেক এক্সচেন্জার ও আছে বাংলাদেশে। বিটকয়েনের ব্যাপারে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের সতকর্তা । কোন দেশ এইটার অস্তিত্ব সীকার না করলেও দিনে দিনে এইটার জনপ্রিয়তা বেড়ে চলেছে। যতোদূর বোঝা যাইতাছে বিটকয়েণ নিজেই একটা ব্যাংকিং সিষ্টেম যা অনেক দেশেই লেনাদেনা করা যায় এবং প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কেনা যায়।SEOClerk মার্কেটপ্লেসে ও আপনি বিটকয়েন ব্যবহার করে প্রোডাক্ট কিনতে পারবে কিন্তু আপনি আপনার উপার্জিত অর্থ SEOClerk মার্কেটপ্লেস থেকে বিটকয়েনে উইথড্র করতে পারবেন না। SEOClerk মার্কেটপ্লেসে যদি আপনার উপার্জিত ডলার থাকে সেটাকে ও আপনি ব্যবহার করতে পারবেন প্রোডাক্ট কিনার ক্ষেত্রে। নীচে কিছু উদাহরন দেখানো হলো: 


  • আপনি শুধু বিটকয়েন আপলোড করতে পারবেন কিন্তু আপনি আপনার উপার্জন বিটকয়েনে ইউথড্র করতে পারবেন না। রাজধানী ঢাকা এবং সারা বাংলাদেশে অনেক ধরনের বিটকয়েণ ওয়েবসাইট আছে যেখানে বাংরাদেশের ব্যাংক, লোকাল ব্যাংক, প্রাইভেট ব্যাংক এবং মোবাইল ব্যাংক ব্যভহার করে কেনাকাটা এবং লেনাদেনা করা যায়। SEOClerk মার্কেটপ্লেসে আপনি শুধু বিটকয়েন/ইথারিয়াম/লাইটকয়েন (BTC/ETH/LTC)আপলোড করে সমপরিমান ডলারের সার্ভিস কিনতে পারবেন। SEOClerk মার্কেটপ্লেসের সাথে বাংলাদেশের কোন ধরনের ব্যাংকিং কানেকশন নাই। মানে SEOClerk মার্কেটপ্লেস থেকে আপনি ডাইরেক্ট বাংলাদেশের কোন ব্যাংকে কোন উইথড্র করতে পারবেন না কিংবা কোন মোবাইল ব্যাংকিং ও করতে পারবেন না। SEOClerk মার্কেটপ্লেস আমেরিকান মালিকানাধীন মার্কেটপ্লেস। কিন্তু অন্যান্য মার্কেটপ্লেসের সাথে সরাসরি বাংরাদেশের প্রাইভেট ব্যাংকে উথড্র ফ্রাসিলিটিজ আছে বা ইদানিং মোবাইল ব্যাংকের ফ্যাসিলিটজ আছে।

  • SEOClerk মার্কেটপ্লেসে বা যেকোন মার্কেটপ্লেসে আপনি যখন কোন কাজ কিনতে যাবেন তখন সেটাকে অর্ডার নামে অভিহিত করা হয়। আপনি যখন কোন কাজ পাবেন সেটাকেও অর্ডার নামে অভিহিত করা হয়। প্রত্যেকটা মার্কেটপ্লেসে একটা অর্ডারের নাম বা নাম্বার থাকে। সেটা একটা কোড দ্বারা প্রকাশ করা হয়। আপনাকে সেই অর্ডার নাম্বার মোতাবেক ই  কাজ করতে হবে। কখনো যদি কোন ক্লায়েন্টের সাথে কোন সমষ্যা হয় তাহলে আপনাকে সেই অর্ডার নাম্বার মোতাবেক ই যোগাযোগ করতে হবে এবং সেই মোতাবেকই কাজ করতে হবে। 
  • SEOClerk মার্কেটপ্লেসে ট্রেড নামের একটা অপশন আছে যেখানে আপনি যে কোন ভাবে যে কোন ক্লায়েন্টের সাথে কন্ট্রাক্ট করে কাজের ব্যাপারে ডিটেইলস আলোচনা করে আপনি নতুন কাজের অর্ডার নিতে পারবেন। 
  • SEOClerk মার্কেটপ্লেসে  কাষ্টম অর্ডার নামের একটা ফাংশন আছে যেখানে আপনি যে কোন সেলার কে যে কোন কাজের উপরে ভিত্তি করে যে কোন ধরনের কাষ্টম অর্ডার দিতে পারবেন। 
  • প্রাইভেট অর্ডার :  অনেক ধরনের মার্কেটপ্লেসে স্পেফিক্যাল যে কোন একজন সেলার বা ওয়ার্কার কে মেনশন করে একটা জব পোষ্ট করা হয় তাদেরকে প্রাইভেট অর্ডার নামে মেনশন করা হয়। সেই অর্ডারগুলো তে সেই মেনশন করা সেলার ছাড়া আর কেউ এপ্লাই করতে পারে না। 
  • বোনাস অর্ডার: একজন ক্লায়েন্টের কাজ করে দেবার পরে সে যদি খুশী হয়ে একই কাজ আবারো অর্ডার দেয় তাহলে সেটাকে বোনাস অর্ডার বলে। 
SEOClerks 
আপনার যদি এই ব্যাপারে আরো কিছু ডিটেইলস জানতে চান তাহলে যোগাযোগ করবেন আমি যতোটা পারি সমাধান দেবার চেষ্টা করবো। আর SEOClerk মার্কেটপ্লেসের ব্যাপারে ডিটেইলস নীচে দেয়া আছে ভিডিও েটিউটোরিয়ালে। এখানে আপনাকে এক টাকাও খরচ করতে হবে না। অন্যান্য মার্কেটপ্লেসে আপনাকে টাকা খরচ করে তারপরে বিড  কিনে কাজ করতে হবে তারপরেও গ্যারান্টি নাই যে আপনি কাজ পাবেন কিনা? আর SEOClerk মার্কেটপ্লেসে বিড করতে বা সার্ভিস বানাতে কোন টাকা/ডলার খরচ করতে হবে  না । একদম এক টাকাও খরচ না করে আপনি কাজ শুরু করতে পারবেন এবং ডলার উপার্জন শুরু করতে পারবেন। একসাথে ০৮ টি মার্কেটপ্লেসের রেজিষ্ট্রেশন পাওয়া যায়। আপনার চাহিদা মতো যেটাতে ভালো লাগে সেটাতেই কাজ করতে পারবেন। আর ডলার উইথড্র করার ভ্যাপারে আপনি পাবেন ৩টা পেমেন্ট মেথডের সুবিধা।



আপনার যদি ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখতে ইচ্ছা না করে এবং আপনি যদি সরাসরি আমার ওয়েবসাইট থেকে জয়েন করতে চান তাহলে িনীচের ইমেজে ক্লিক করেন এবং রেজিষ্ট্রেশন করেন ফ্রি তে। আর ৫ ডলারের কোন সার্ভিস যদি আপনার আমার কাছ েথেকে নেয়ার মতো থাকে তাহলে আপনি আমার রেপারেলে জয়েন করে আমার কাছ থেকে ৫ ডলারের কুপন নিয়ে সেই সার্ভিস টা কিনে নিতে পারেন।  ৫ ডলার বোনাস




Wednesday, February 26, 2020

ইউটিউব ভিউজ এর কিছু খুটিনাটি?

আমরা অনেকেই ইদানিং মনে করতাছি নিজস্ব একটা চ্যানেল ওপেন করে ৪০০০ ঘন্টা এড করলেই আমার চ্যানেলটা মনিটাইজেশন এর উপযোগী হবে। কিন্তু একটা জিনিস ভেবে রাখা দরকার যে- এই মূহুর্তে গুগল ইউটিউব মনিটাইজেশন বাংলাদেশ থেকে অফ করে দিছে সো এখন আপনাকে অন্যান্য মনিটাইজেশন এর সাহায্য নিতে হবে। এখানে প্রকাশ থাকে যে- সবচেয়ে ভালো নেটওয়ার্ক -গুগল ইউটিউব মনিটাইজেশন থেকেও- ফ্রিডম ডট টিএম। (http://www.freedom.tm)




আপনার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইভার থাকতে হবে ৫০০০। আর সর্বশেষ মাসে ৫ লক্ষ মিনিট ওয়াচ টাইম থাকতে হবে। এখন আসি কিভাবে ওয়াচ টাইম এড হয়? আপনি যখন কোন ইউটিউব ভিডিওতে মিনিমাম ৩০ সেকেন্ডস চোখ রাখবেন তখনই আপনি একজন ভিউয়ার হয়ে যাবেন। ক্ষেত্রবিশেষে এইটা ১ মিনিট ও হইতে পারে কারন ভিডিও এর দৈর্ঘ্য যদি ১ ঘন্টা বা তারো বেশী হয় তাহলে ১টা ভিউজ কাউন্ট হইতে পারে সেকেন্ডের কম বেশী হইতে পারে। আপনি কিভাবে আপনার ইউটিউব ভিডিও তে ভিউয়ারস বাড়াবেন বা এড করবেন সেই ব্যাপারে আমার একটা ব্লগ পোষ্ট আছে - যদি পড়ে নেন তাহলে খুটিনাটি অনকে কিছু বুঝে যাবেন। ব্লগ এড্রেস: ইউটিউব ভিউজ

এখন আসেন ইউটিউব ভিউজ এর মাধ্যমে কিভাবে আপনার ডলার উপার্জন হবে?
আপনি যদি মনে করে থাকেন শুধু ভিউজ বাড়লেই আপনার উপার্জন হবে ব্যাপারটা সঠিক না। আপনার উপার্জন হবে তখনই যখন একজন ভিজিটার আপনার ভিডিও এর ভেতরে থাকা বা স্থাপন করা ইউটিউব এড বা এডভারটাইজ এ ক্লিক করবে বা ভিজিট করবে তখন আপনার একটা উপার্জন আইসা জমা হবে। ।এখন যদি আমার একটা ভিডিও তে আমি ১ মিলিয়ন ভিউজ এড করলাম বা কোন ধরনের টেকিনক ছাড়াই এক মিলিয়ন ভিউজ পেয়ে গেলাম আর সেখানে থেকে কোন এড ক্লিক হলো না বা এড ভিজিট হলো না তাহলে তো আমার মনিটাইজেশন একাউন্টে কোন ডলার বা সেন্ট এড হবে না। আর আমার ১ মিলিয়ন ভিউজ এর মধ্যে যদি ১ লাখ ও ক্লিক করে ভিডিও এর মধ্যে প্রদর্শন করা এড এ তাহলে ও সেখানে আপনার ভালো উপার্জন হবে। যদি একটি ক্লিকের মূল্য ১০ সেন্ট হয়ে তাকে তাহলে ১ লাখ ক্লিকের জন্য আপনি পেয়ে যাবেন:
১০ সেন্ট * ১ লাখ ক্লিক= ১০০০০ ডলার । এখন যদি এড এর প্রাইজ আরো বেশী হয় ধরেন ৩০ সেন্ট বা ৩০ ডলার তাহলে আপনার উপার্জনের লেভেল কেমন হবে?

এখন আসেন প্রেক্ষাপট বিবেচনা করি?

প্রথমে ভাবতে হবে যে আমার ভিডিও এর ভিজিটর কারা? তারা কি ধরনের এড পছন্দ করে? এখন মনে করেন আপনি ইউটিউবে নাটক বানাচ্ছেন। এখন আপনার নাটকের ভিজিটর সকল ধরনরে মানুষ কিন্তু আপনি আপনার নাটকের জন্য এড সেট আপ করলেন স্পেন বা আফ্রিকান কোন এড। তাহলে কি সেটাতে ক্লিক আসবে বা ভিজিট হবে। মিনিমাম ১০০ সেকেন্ড থাকতে হয় কোন ওয়েবসাইট বা এ্যাপে আপনার মনিটা্জইজেশনের ভিজিটর হইতে হলে । বাংলাদেশী নাটকের ভিজিটর বাংলাদেশীরা। সেক্ষেত্রে আপনাকে এড সেট আপ করতে হবে গুড়া সাবান বা কাপড় ধোয়ার সাবান বা কাচা বাজার বা লবন বা এই ধরনের নিত্য প্রয়োজনীয় এড এর। তাহলে সেই এড টা দর্শক রা ভিজিট করবে এবং সেটা আপনার জন্য লাভজনক হবে। আবার এখন যদি বাংলাদেশী কোম্পানী বা মাল্টি ন্যাশনাল কোম্পানী গুলো এড ই না দেয় তাহলে তো আপনি আরো বিপদে পড়বেন। যেমন ইন্টারনেটে কাজ করা অবস্থায় সেদিন দেখলাম সারিকা সাবরিনের নাটকের এড যা নাটকের প্রমোশনাল ডিপার্টমেন্ট সেট আপ করেছে এডওয়ার্ডস এ বাংলাদেশ লোকেশন দিয়ে। যার ফলে এক নাটকের ভেতরে অন্য এক নাটকের প্রমো দেখে তা দেখতে ইন্টারেষ্টেড হই। নাটকের নাম : An Affair.




যেহেতু গুগলের এড মনিটাইজেশন এখন আর বাংলাদেশ কে এপ্রুবাল দিতাছে না এবং গুগলেল চেয়ে বড় নেটওয়ার্ক এখন ফ্রিডম নেটওয়ার্ক সে ক্ষেত্রে পারফেক্ট রেজাল্ট পাইতে হলে আপনাকে মাষ্ট বি ফ্রিডমের এডভার্টাইজার হতে হবে। সেটা আরো একদিন ডিটেইলস আলোচনা করবো।



এছাড়াও অনেক অনেক মনিটাইজেশন চ্যানেল আছে যেখানে আপনি আপনার চ্যানলে রেজিষ্ট্রেশন করে সহজেই মনিটাইজেশন এর জন্য আবেদন করতে পারবেন । তবে সব কিছু দেখে আপনি যদি সততার সহিত কাজ করেন তাহলে আপনি মাষ্ট বি বেনিফিটেড হবেন। সকল মনিটাইজশেন চ্যানেল নিয়ে আরো একদিন ডিটেইলস আলোচনা করবো। কোনটাতে কিভাবে আবেদন করবেন?




আপনার প্রোডাক্ট যদি ইন্টারন্যাশনাল হয় তাহলে আপনি এখন এড্ওয়ার্ডের সাহায্য নিতে পারেন। আর যদি আপনি লোকাল এডর্ভার্টাইজার হোন তাহলে আপনাকে মনে রাখতে হবে যে এই মূহুর্তে ইউটিউব মনিটাইজেশন এর এপ্রুভাল আর পাওয়া যাইতাছে না। সো আপনার এড কি কারেন্ট লোকেশেন শো হইতাছে? যদি কোন ক্ষতি হয় আপনার চ্যানেল বা ব্রান্ডের। আর গুগল কিংবা ইউটিউব নিশ্চয়ই এতো বোকা না যে আমরা সমানে ভিউজ কিনবো আর তারা সেখানে মনিটাইজেশন রান করে যাবে? মনিটাইজেশন এ গেইনার হবার মেইন উপায়ই হইতাছে সততা। যদি আপনি সোশাল মিডিয়া প্যাণেল ব্যবহার করেন আর আপনার ভিডিওতে মিলিয়ন ইভেন বিলিয়ন ভিউজ ও জেনারেট করেন তাহলে আপনাকে মনে রাখতে হবে যে ইউটিউব জানে যে আপনি কোথা থেকে ভিু্জ আনলেন। যদি আপনি সোশ্যাল মিডিয়া এক্সচেন্জ ও ব্যবহার করেন তাহলেও আপনাকে মনে রাখতে হবে যে ইউটিউব কিংবা গুগল জানে যে আপনি কোথা থেকে ভিউজ জেনারেট করে আনতাছেন। সো অনেষ্ট ওয়ে হইতাছে ইউটিউব এসইও করা। ইউটিউব এসইও করে আপনি যদি আপনার মনিটাইজ করা চ্যানলে হাজার হাজার ভিউজ জেনারটে করতে পারেন তাহলে এইটা ক্লিয়ারলি বলা যাবে যে আপনি লক্ষ ডলার উপার্জন করতে পারবনে সহজেই। আর গুগল কিংবা ইউটিউব এইটা সহজেই জানে যে আপনি ইউটিউব বা গুগলে ঠিক কোতাকার লোকেশন ব্যবহার করতাছেন এবং এট এ টাইমে আমাদের দেশর সকল চ্যানলে ও তারা অফ করে দিতে পারে যদি তারা দেখে যে আপনি ফল্ট করে চলতাছেন। এক কথায়েএইকানে চালাকি করার কোন উপায় নাই। আর যদি কারো চ্যানেল একেবারে অফ করে দেয়া হয় সেক্ষেত্রে তার ভিডিও কন্টেন্ট কেন ব্যান্ড করে দেয়াও অসম্ভব কিছু না। আর আমার বিডিও কন্টেন্ট যদি নাটকে সিনেমার নায়ক নায়িকা ও হয়ে তাকে তাহলে সেক্ষেত্রে তাদের ইউটিউব বা গুগল ডট কম ইমজে চিরকালের জন্য খারাপ হয়ে যাইতে পারে। সো চলেন সবাই সততার সহিত ফ্রিডম ডট টিএম ব্যবহার করি তাহলে হয়তো এই মূহুর্তকার আপনার ক্ষতি টা পোষাইয়া নেয়া যাইতে পারে। গুগল এডসেন্সের ক্ষেত্রে এই ধরনরে কোন সমস্যা পরিলক্ষিত হয় নাই। আপনি যখনই ইন্টারনেটে আসেন বা ব্যহার করেন আর চেক ইন দেন বা ব্রাউজার ওপেন করেন তখন প্রোগ্রামাররা রা তো মিনিমাম জানতে পারবে যে আপনি কোথা থেকে ইন্টারনেট কানেক্টেড হইতাছেন?


Saturday, February 22, 2020

নেইম চিপ একাউন্ট থেকে ওয়েবসাইট রিনিউ করলাম।

আমি অনেক আগে তেকে নেইমচিপ একাউন্ট ব্যবহার করতেছিলাম।হঠাৎ করেই নোটিফিকেশন পাইলাম যে আমাকে একটা ডোমেইন রিনিউ করতে হবে। তো আর কি করা? চলে গেলাম ব্যাংকে। ক্রেডিট কার্ডে ডলার লোড করলাম। তারপরে ষ্টেপ নিলাম ডোমেইন রিনিউ করার। কিভাবে ক্রেডিট কার্ডে ডলার লোড করতে হয়ে তার একটা পূর্ববর্তী পোষ্ট দেয়া আছে পরীক্ষা করে দেখতে পারেন। 

প্রথমে একাউন্টে ০৩ ডলার ছিলো। তারপরে ১০ ডলার লোড করলাম। সব মিলিয়ে ১৩ ডলার +দেখাবে। বেসিকালি ডোমেইন রিনিউ করতে গেলে প্রথমে আপনার কাছে নোটিফিকেশন আসবে। সেই নোটিফিকেশন অনুযায়ী যদি আপনি আগান তাহলে নেক্সট এবং ইয়েস এর মাধ্যমে আপনি নতুন করে ডোমেইন রিনিউ করে ফেলতে পারবেন।  


                             

এখানে নীচের ছবিতে দেখবেন অলরেডী ডলার লোড করা হয়েছে। তারপরে আপনি ডোমেইন রিনিউ বাটনে ক্লিক করার পরে এই পেজটা আসবে। একানে আপনার টোটাল কতো ডলার খরচ গবে সেটা দেখাবে। 


যদি আপনার কাছে কোন কুপন কোড থাকে আপনি সেটাও ব্যবহার করতে পারেন। 



তারপরে নেইম চিপ থেকে সেলস রিসিট জেনারেট করে দেখাবে। এখান েসব ডিটেইলস দেয়া থাকবে।


তারপরে  WhoIsGuard  এর প্রাইজ ইনক্লুডেড সহ টোটাল প্রাইজ টা দেখাবে। 


এবং এই সেলস রিপোর্ট টাও দেখাবে। 



পরিশেষে  ফাইনাল রিপোর্ট দেখাবে। 



ব্যাপারটা খুবই সহজ। যে কোন ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড যদি থাকে এবং যে কোন ব্যাংকের সাথে যদি ডুয়াল কারেন্সী ক্রেডিট কার্ড থাকে তাহলেই আপনি নেইমচিপ থেকে ডোমেইন কিনে যে কোন খানে ব্যবহার করতে পারবেন এবং  সেলও করতে পারবেন। তবে প্রকাশ থাকে েয আপনি েএমন ধরনের কোন প্রাইজে ডোমেইন কিনবনে না যাতে আপনার বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ আসে। আর িপরিশেষে যদি আপনার আরো কেনা প্রশ্ন থাকে তাহলে আমাকে জানাবেন। 

Namecheap.com এ কিভাবে ডোমেইন নেম সার্চ করবেন?
প্রথমে ওয়েবসাইটে আসনে এবং সকল ডিটেইলস চেক করে দেখেন।


তারপরে ডোমেইন সার্চ বক্সে আসেন।


তার আগে ডোমেইন বক্সে ক্লিক করে আপনি অল ডিটেইলস চেক করে দেখতে পারেন। 



সেখানে ডোমেইন ক্লিক অপশনে যাইয়া ওয়েবসাইট নাম সার্চ করে দেখবেন।



ডিজায়ারড ডোমেইন নেম গুলো দেখেন। এক্সটেনসহ এবং প্রাইজ সহ দেখাবে। 





Social Media Bookmark Link Building White Hat SEO. Off Page Optimization.







Social Media Bookmark link building is very much important white hat SEO - off page optimization technique to increase and generate traffic or visitors for your website or products or blogs. The more visitor you generate- the more revenue will come. White hat SEO is the only policy to increase the sales or revenue for your e commerce website or products.

In this free tutorial- you will get the knowledge about social media link building policy. Before start work you will be need:



A Good SEO Title (Within 50 words).

A Good description (within 150 words- SEO based)

Some keywords- which you want to rank high.

Some images- which you will use. Maximum time you will be need the

Website address.



#whitehatSEO

#Offpageoptimization

#socialmediabookmark

#socialmedialinkbuilding

#linkbuilding

How to collect Youtube Links from Like4like.


How do You will collect youtube links to get the details of an youtube channel?
How do you will understand the views has been added to youtube videos views section from like4like channel?
How does the youtube video views works with like4like?
How do you will find the channel details to collect emails and all social media links. You will maintain an excel sheet to collect emails and all social media profile links. After than you can do email marketing or you can sell your services to seoclerk or related 08 marketplace website.
Register free with the world largest SEO marketplace and one time free registration- you will get eight website membership. Listing and services are completely free.

Wednesday, February 19, 2020

SMMCart.com Sales Proof. E Commerce. Woo commerce. API SMM. SMM Signal S...





Application programming interface.

Social Media Marketing.

Worldwide or specific geo location based social media signal seller services.

Only Paypal.com allowed countries.

API works with paypal.com only for smmcart.com



#API

#SMM

#SME

#ApplicationProgrammIngInterface

#SocialMediaMarketing

#Affiliate

#Ecommerce

#Worldwide

#Specificgeolocation

#ecommerce

#Woocommerce

#geolocation

#whitehatseo

Tuesday, February 18, 2020

API SMM. Application programming interface social media marketing. Buy s...





#API
#SMM
#ApplicationProgrammingInterface
#SocialMediamarketing
#smmcart
#socialmediasignalseller
#APISignalseller

#Socialdeveloper

কিভাবে আপনি কোডক্লার্ক মার্কেটপ্লেসে রেজিষ্ট্রেশন করবেন এবং সার্ভিস তৈরী...


কিভাবে কোডক্লার্কে র আপনি রেজিষ্ট্রেশন করবেন এবং কিভাবে আপনি কোডক্লার্কে সার্ভিস সেল করবেন?
আপনার এক টাকাও খরচ হবে না ফ্রি ল্যান্সার এবং আউটসোর্সিং মার্কেটপ্লেসে রেজিষ্ট্রেশন করতে।
একবার সাইট আপ ৮টি মার্কেটপ্লেস মেম্বারশীপ।

#কোডক্লার্ক
#ব্লগার
#ব্লগিং
#সার্ভিসসেল
#কোডক্লার্কমার্কেটপ্লেস
#মার্কেটপ্লেসবাংলাটিউটোরিয়াল
#ফ্রিল্যান্সারবাংলাটিউটোরিয়াল
#BuyPhp
#SellPhp
#C#
#ASP
#BuyPHPScripts
#SellPHPScripts
#Javascript
#Java
#CSS
#wordpress

কিভাবে আপনি পেমেন্ট বিডি থেকে টাকা/ক্যাশ উইথড্র করবেন?


এই ভিডিও এর মাধ্যমে আপনি দেখতে পারবেন যে কিভাবে পেমেন্টবিডি ডট কম থেকে Cash উইথড্র করবেন? 



#masudbcl
#paymentbd
#paypalbd
#dollarexchnage
#paypaldollarexchangebd
#Bangladeshdollarexchange

Wednesday, February 12, 2020

আপনি কিভাবে নেইম চিপ ডোমেইন রিনিউ করবেন?

গতকাল আমি নেইমচিপ ডোমেইন রিনিউ করলাম। তার আগে একাউন্ট ব্যালান্স টপ আপ করে নিলাম। এইকানে আপনাকে দেখাবো আমি ষ্টেপ বাই ষ্টেপ। নেইমচিপ পৃথিবীর অন্যতম প্রধান ডোমেইন এবং হোষ্টিং সেলার প্রতিষ্টান।



 উপরের ছবিতে আপনি ক্লিক করেন তাহলে আপনি একটা ওয়েবসাইট পাবেন যেখান থেকে আপনি েপছন্দমতোন ডোমেইন কিনতে পারবেন।আপনি যে নামে ডোমেইন সার্ করবেন সেই নামে যদি পৃতিভতে ডোমেইনটা কেউ না কিনে  থাকে তাহলে আপনি ডোমেইন টা কিনতে পারবেন। এখানে দেখেন ওযেবসাইটে আসার পরে সার্চ ডোমেইন অপশন আছে। তান সাথে লিখা আছে - Go Bid with  your next domain.  এখানে আপনি আপনার ডোমেইন নেম লিখে সার্চ কম্পাসে ক্লিক করবেনথ তাহলে আপনাকে সে এভেইলেবল ডোমেইন নেম গুলো দেখাবে। সেখান থেকে আপনার ডে ডোমেইন নেম টা ভালো লাগবে সেটাই আপনি কিনতে পারবেন। ডোমেইন সেলার বা রিসেলার হিসাবে বাংলাদেশের অনেক কোম্পানি আছে। তাদের কাছ থেকে ও আপনি ডোমেইন কিনতে পারবেন। কারন ডোমেইনটা কিনার পরে আপনার ডোমেইন টা মেইনটেইন করার ব্যাপারও  আছে। যদি কখনো ডোমেইন টা হ্যাক হয় সেটা আবার ফিরআয়িা আনার ব্যাপার আছে। এখন জানি কিভাবে একটা ডোমেইন নেম তৈরী হয়। 

একটা ডোমেইন এর মাষ্ট বি ৩ টা পার্ট থাকবে। প্রথমে www বা http://www বা https://www. বা http://
বা https://    এইটা ১ম পার্ট। এর মানে হইতাছে আমরা সবাই জানি ওয়াল্ড ওয়াইড ওযেব । আর  http বলতে বোঝানো হয় হাইপার টেক্সট ট্রান্সফার প্রটোকল। এই ব্যাপারে ডিটেইলস আরেকদিন জানাবো। 



সেকেন্ড পার্ট: আপনার ডোমেইন নাম এর মূল অংশ। যেমন আপনি মনে করেন নতুন একটা ডোমেইন কিনতে চাইতাছেন জয় বাংলা নামে। দেখেন জয় বাংলা নেম টা এখানে কিভাবে দেখায়। এখঅনে ইংরেজিতে লিখার সময়ে আপনাকে অবশ্যই জয় বাংলা র মাঝখানে কোন গ্যাপ রাখা যাবে না। 

৩য় অংশ:  ডট এক্সটেনশন। (.extension) এখানে ডট এক্সটেনশন বলতে বোঝানো হয় যে- আপনার ওয়েবসাইটের শেসের যে অংশটা থাকবে সেটাকে। নীচের ইমেজগুলোর মাধ্যমে দেখাবো একটা ওয়েবসাইটের ঠিক কয়টা একসএটনশন হয়অ অনেক ধরনের এক্সটেনশন আছে বিশ্বে। আজকে থেকে ১০ বছর আগে ইন্টারনেট ওয়ার্ল্ডে শুধু ডট কম ছিলো । এখণ আর নাই। এখন অনেক  এক্সটেনশন আছে। যেমন উপরে আমার ওযেবসাইটের ইমেজে দেখেছেন যে .xyz দেয়া আছে। সো এখানে .xyz বলতে এক্সটেনশন বোঝানো হয়।





এখানে আমি তাসনিয়া ফারিন লিখে সার্চ দিছি এবং আপনি দেখতে পেরেছেন কতোগুলো ডোমেইন নেম এভেইলেবল। যতোগুলো ডট একসএটনশন নাম কিনে ব্যবহার করতে পারবেন। এখানে প্রথমে দেখানো হইতাছে তাসনিয়া ফারিন ডট কম নামটা বুকড করে রেখেছে। এইটাকে ডোমেইন পার্ক বলে। মনে করেন তাসনিয়া ফারিন বাংলাদেশের জনপ্রিয় মডেল। তার জনপ্রিয়তা দিন দিন বেড়ে চলতাছে। অলরেডী সে কয়েকটা ব্যান্ডের বিজ্ঞাপনে শ্যুট করেছে। সো তার নামের ডোমেইন গুলোর চাহিদা দিন দিন বেড়ে যাবে। বাংলাদেশে এখনো এরকম মডেল দেখি নাই যে তার সবগুলো ডোমেইন কাজে লাগাতে পারবে। এগুলো সারা বিশ্বে যারা সুপার মডেল আছে তারা করতে পারে। বাংলাদেশে যে সকল নাম জনপ্রিয় সেগুলো যদি আপনি আগে  ভাগে আপনার ক্রেডিট কার্ড বা যে কোন পেমেন্ট মাধ্যমে কিনে থাকেন তাহলে অরিজিনালি যখন ডোমেইন গুলো দরকার হবে তখন যে ডোমেইন কিনতে চাইতাছে সে আপনার কাছ থেকে চড়া দামে কিনে নিবে। আর  ফ্রি ল্যান্সিং  জগতে এই জনপ্রিয় মেখড টাকে বলা হয় ডোমেইন পার্কিং। আপনি ডোমেইন পার্ক করেও অনেক ডলার উপার্জন করতে পারবেন।  উপরের ছবি গুলোতে আমি বাম দিকের ডোমেইন গুলো মার্ক করে দিছ এবং ডান দিকে ডোমেইন প্রাইস ও মার্ক করে দিছে। যেভাবে ই কমার্স ওয়েবসাইট থেকে কোন কাটা কনে ঠিক সে ভাবেই ইন্টারন্যাশনার ক্রেডিট কার্ড বা ডেবিট কার্ড এর মাধ্যমে আপনি ও নিজের নামে যে কোন ডোমেইন কেনা কাটা করতে পারবেন। আর আপনার যখন মনে চায় নেইম চিপ থেকে কেনা কাটা করণে আপনি অন্য যে  কারো নামে ডোমেইনটা ট্রান্সফার করতে পারবেন। সেটা আরো একদিন ডিটেইল স প্রমান সহ দেখানো হবে। 

এখন এড টু কার্ট করে মনে করেন আপনি একটা ডোমেইন এক বছরের জন্য কিনে ফেলেছেন। ডোমেইন প্রতি বছরের জন্যই রিনিউ করতে হয়। যারা বড় সড় ব্যবসা করে তারা মনে করেন একবারে ১০-২৫ বছরের জন্য ডোমেইন কিনে নেয়। এছাড়াও আপনার নামের ডোমেইন যদি খুব বেশী চার্জে হয়ে যায় তাহলে আপনি ডোমেইন সেলার প্রসতষ্টানের কাষ্টমার কেয়ারের সাথে কথা বলে একটা বেটার আইডিয়া পাইতে পারেন বা অন্য নামে সেটা সহজ দাম সেটা কিনেও আপনি আপনার ব্রান্ড বা ব্যবসা শুরু করতে পারেন। তারপরেও আপনার যদি আরো ডিটেইলস সাহায্য লাগে তাহলে আর্টিকেলের নীচে আামর ডিটেইলস কন্ট্রাক্ট দেয়া থাকবে সেখান থেকে যোগাযোগ করতে পারেন। আমি আমার সাধ্যমতো চেষ্টা করে জানাবো। কিভাবে ডোমেইন রিনিউ করতে হয় তা নীচে ইউটিউব ভিডিও আকারে দেখানো হলো।










এখানে ডোমেইন নেম রিনিউ করার ডিটেইলস ইমেজের মাধ্যমে এবং একটা স্ক্রিনশটের মাধ্যমে দেখানো হলো। একটি ডোমেইন যদি আপনি ১ বছরের জন্য কিনেন তাহলে আপনি রিনিউ করার সময়ে সেটাকে ৫/১০/১৫/২০/২৫ বছরের জন্য েরিনিউ করতে পারেন। আবার যদি আপনি একটা ডোমেইন ১০ বছরের জন্য কিনেন আর একটা ব্যবসা শুরু করেন আর ৭ বছর পরে আপনি যদি সেই ব্যবসা সেল করে দিতে চান তাহলে আপনি  ডোমেইন সহ সেল করে দিতে পারেন বা ট্রান্সফার করে দিতে পারেন। আপনার যদি িএ ব্যাপারে আরো ডিটেইলস জানার থাকে তাহলে আপনি আমাকে নক দিতে পারেন। ডিটেইলস জানাবো বা পরে আরো একটি ব্লগ লিখিত আকারে তৈরী করে বা ভিডিও তৈরী করে আপনাকে দেখাবো। 

সো আশা করি ডোমেইনের ব্যাপারে অনেক কিছু জানতে পারলেন। এখন আপনি যদি প্রশন্ন করেন যে ভাই আপনি ভিডিও তৈরী না করে ব্লগ লিখলেন কেনো - আমি উত্তরে বলবো প্রথমত আমি বাংলা লিখতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করি। দ্বিতীয়ত বিশ্বে পড়তে ভালোবাসে এরকম লোকের সংখ্যা চিরকালই থাকবে। 

এই ভিডিওতে আপনি দেখতে পারবেন কিভাবে নেইমচিপ ডোমেইন কে রিনিউ করা হয়। কিভাবে এড ফান্ডে ফান্ড এড করবেন আর কিভাবে হুইজ গার্ড রিনিউ করবেন। Who is Guard একটি প্রতিষ্টান যা নেইম চিপের সাথে এবং আরো অণ্যান্য ডোমেইন সেল প্রতিষ্টানের সাথে কাজ করে যাদের মেইন কাজ হইতাছে ডোমেইন কে হ্যাকারদের হাত তেকে সেফ রাখা। আর যদি আপনার ই কমার্স ওয়েবসাইট থাকে তাহলে আপনাকে আলাদা করে  এসএসএল সার্টিফিকেট কিনতে হবে। 


Monday, February 10, 2020

কিভাবে আপনি লাইকি ফ্যান ফলোয়ার জেনারেট করবেন?

ইমু, টিকটক এবং লাইকি- তরুন প্রজন্মের কাছে সবচেয়ে পপুলার তিনটি মাইক্রো ভিডিও রেকর্ডিং প্লাটফর্ম। এখানে এমন কোন তরন জেনারেশন নাই যে একাউন্ট তৈরী করতাছে না বা একাউন্ট দিয়ে ভিডিও রেকর্ডিং করতাছে না। এইটা তাদের কার এখন কার সময়ের ষ্টাইল। যেমন আমাদের সময়ে ষ্টাইল ছিলেঅ সেবা প্রকাশনীর বই পড়া বা সাপ্তাহিক বিচিত্রা পত্রিকা তে চোখ বুলানো- সেরকম এখনকার খরুন প্রজন্মের ছেলে রা এবং মেয়ে রা উপকৃত বা পুলকিত হয় বা একটা জেনারেশন বা এবটা প্রজন্ম গড়ে তুলেছে এই ৩টা এ্যাপ ভিত্তিক।  এই ৩টা এ্যাপ এদের আনন্দ করার মাধ্যম। ইট পাথরের খাচাতে বন্দি থেকে রাজধানী ঢাকা শহরে আনন্দ করার এই এ্যাপস গুলো একটা অন্যতম মাধ্যম। ইউরোপিয়ার আমেরিকান দেশের মতো ১৩ বছর বয়সের পরে একটা ছেলে বা মেয়েকে যতোটা স্বাধীনতা দেয়া হয় এখানে ও তেমনি একটা ছেলে বা মেয়েকে ইন্টারনেট বা এই এ্যাপস গুলো চালানোর মতো সুযোগ সুবিধা আমাদের দেশের বর্তমান সোসাইটি দিয়ে ফেরেছে। প্রেথমেই দেখি এ্যাপসগুলো আপনি কিভাবে গুগল প্লেষ্টোর তেকে এক ক্লিকে ডাউনলোড করবেন। 
 Imo

 Likee

 TikTok


এ্যাপসগুলোর যে কোন একটাতে ক্লিক করলেই আপনাকে গেুগল প্লে ষ্টোর এর ডাউনলোড পেজে নিয়ে যাবে। সেখানে থেকে যেভাবে নেক্সট এবং ইয়েস এর মাধ্যমে এ্যাপস ইনষ্টল করতে হয় সেভাবে আপনিও এ্যাপস ইনষ্টল করে নিবেন। এই এ্যাপসগুলো দিয়ে সহজেই ভিডিও  তৈরী করা যায়। ১৫ সেকেন্ড থেকে ৪৫ সেকেন্ডের ভিডিও গুলো এই প্রজন্মের কাছে কুবই জনপ্রিয়। এখনো ইমু বিডিও ভিত্তিক সোশাল মিডিয়া এক্সচেন্জ এখনো শুরু হয় নাইখ কিন্তু অপর ২টা এ্যাপস এ সোশাল মিডিয়া এক্সচেন্জ শুরু হয়ে গেছে সম্প্রতি পৃথিবীর সবচেয়ে জনপ্রিয় সোশাল মিডিয়া এক্সচেন্ড ওয়েবসাইটে।




তো একটা ১৫-৪৫ সেকেন্ডের বা তার চেয়ে ও বেশী সময়ের ভিডিও আপলোড করতে গেলে আপনাকে এ্যাপস এর ভিডিও রেকর্ডিং সেকশনের সাহায্য নিতে হবে এবং তাদের এ্যাপসগুলোর অনেক সেকশন আছে যেগুলো আপনাকে ডে বাই ডে ষ্টাডি করে নিতে হবে বা নিকটস্থ কোন বন্ধুর কাছ থেকে যারা এই এ্যাপসগুলোতে এক্সপার্ট তাদের কাছ থেকে শিখে নিতে হবে। উপরে দেখবেন- একটা ব্যানার দেখাচ্ছে। সেখানে ক্লিক করলে আপনি একটা ওয়েবসাইটে চলে যাবেন।



আপনার লাইক তে ফলোয়ার বাড়াতে হলে প্রথমে আপনাকে একটা ওয়েবসাইটে সদস্য হতে হবে এবং সেখান থেকে আপনাকে ফ্রি রেজিষ্ট্রেশন করতে হবে। ওয়েবসাইটের হোম পেজে অনেক ডিটেইলস দেয়া আছে যা আপনি সহজেই বুঝতে পারবেন।পারলে পুরোটা পড়ে নিবেন। পৃথিবীতে যে কোন ওয়েবসাইটে সারা জীবন কাজ করার ইচ্ছা থাকলে টিওএস এবং প্রাইভেসী পলিসি পড়ে নিতে হবে অবশ্যই। তারপরে প্রথম ষ্টেপ হিসাবে আপনাকে রেজিষ্ট্রেশন করতে হবে। 

 addmefast


এখন আপনাকে এই রেজিষ্ট্রেশন ফর্ম ফিলাপ করতে হবে। তারপরে আপনার কাছে একটা ইমেইল যাবে। সেখানে ইমেইল ভেরিফিকেশন করতে হবে। তারপরে আপনার ইমেইল এক্টিভেশন করে আবার আপনাকে হোম পেজে আইসা লগ ইন করতে হবে। লগইন করার পরে আপনি একটা ওয়েলকাম বোনাস পাবেন এবং আপনার কাছে একটা টার্মস এবং সার্ভিস পেজ আসবে এবং সেখানে আপনাকে কন্ডিশন এ রাজি হতে হবে। তারপরে আপনি একটা ওয়েলকাম পেজ পাবেন।


তারপরে আপনি বাম দিকে তাকালে দেখতে পারবেন যে বিভিন্ন ধরনের অপশন আছে। সেগুলো তে আপনি বাম দিকের ফ্রি পয়েন্টস এ ক্লিক করবেন । তাহলে আপনি নিজে নিজে এখানে কাজ করে পয়েন্ট উপার্জন করতে পারবেন । এডমিফাষ্ট ডট কম তেকে যদি আপনি পয়েন্ট উপার্জন করে সেল করতে চান তাহলে আপনাকে মোটামুটি টিম তৈরী করে কাজ করতে হবে। হাই স্প্রিড ইন্টারনেটে কানেকশন লাগবে। ১০ জনের একটা টিম নিয়ে যদি কেউ কাজ করে তাহলে সারাদিনে ২ঘন্টায় ১০০০০ পয়েন্ট করে করে সেল করতে পারবেন সারো দেশ বা সারা বিশ্বে। সারা দেশে সেল করতে গেলে হয়তো আপনাকে ২৫০-৩০০ টাকা করে দেবে। রেফারেল অপশন আছে। যদি কেউ আপনার লিংক তেকে জয়েন করে তাহলে আপনি একটা পয়েন্ট বোনাস পাবেন। আবার যদি আপনি টানা ৭৫ টা এড দেখেন তাহলে আপনাকে ৫০০ পয়েন্ট বোনাস পাবেন। প্রথম দিন যেদিন রেজিষ্ট্রেশন করবেন সেদিন কোন বোনাস নাই। তারপরের দিন তেকে বোনাস এড হবে। এখন আপনি যদি বলেন যে আপনি পয়েন্ট করবেন না - আপনি পয়েন্ট কিনবেন তাহলে আপনার অনেক কষ্ট হবে।  কারন যেখানে সারা বাংলাদেশে ৩০০০ পয়েন্ট ৫০-৬০ টাকা দিয়ে কেনা হয় সেখানে আপনার ৮৫০০ পয়েন্টের দাম আসে প্রায় ২২০০ টাকা যা একপ্রকার আকাশ সমান দাম। এখানে আপনি নীচের  ইমেজে দেখেন ৮০০ পয়েন্টের দাম ৩ ডলার। ৩ ডলার মানে প্রায় ২৫০ টাকা। সেক্ষেত্রে ২৫০ পয়েন্ট দিয়ে আপনি প্রায় ১০০০০ পয়েন্ট লোকালি কিনতে পারবেন। এ ব্যাপারে আরো ডিটেইলস দেয়া থাকবে ভিডিওতে। সো আপনি যদি ক্রেডিট কার্ড দিয়ে পয়েন্ট কিনে ইন্টারন্যাশনালি সার্ভিস সেল করেন তাহলে আপনার অনেক বেশী প্রাইজ চাইতে হবে যাতে করে কেউ রাজি হবে না। পৃথিবীর সব দেশের জন্য ই এপিআই সার্ভিস ওপেন আছে। বোধ করি বাংলাদেশের জন্য ও আছে কারন বাংলাদেশ তো একটা দেশ। সেক্ষেত্রে বাংরাদেশে পার হেড  আইপি না থাকার কারনে যদি এই ব্যাপারটা হাইড করা হয় তাহলে বের করার কোন উপায় আপাতত আমার কাছে নাই। কিন্তু একানে এই এড মি ফাষ্টে  আপনি বাংলোদেশ আলাদা করে স্পেসিফাই করে দিতে পারবেন। সে ক্ষেত্রে আপনি যে কাউকে অফার দিতে পারবেন যে আপনার সোশাল মিডিয়া পোষ্টে আমি ১০০০০/২০০০০/৩০০০০ লাইক এড কেরে দিবো। এটএ টাইমে একটা জনগোষ্টী অনলাইনে আসলো এবং সমানে কান্ট্রি ওয়াইজ রাইক দিয়ে চলে গেলো। যে লাইক পাইলো সে তো মহাখুশী। আমার পোষ্টিং এ অনেক রাইক এসেছে কিন্তু সেটা বাস্তবে সোশাল  মিডিয়া এনগেজমেন্ট হলো না।  সোশাল মিডিয়া এনগেজমেন্ট বলেতে এখানে বোঝানো হইতাছে আপনি যে কারনে পোষ্টিং টা দিয়েছেন আপনার সেই পোষ্টিং টা সফল হলো কি না হলো। ধরেন আপনি একটা রেষ্টুরেন্টে গেছেনঅ আপনি জনপ্রিয় মডেল। রেষ্টুরেন্টের মালিক আপনাকে একটা অফার দিলো। যে আপনার সোশাল মিডিয়া প্রোফাইলে অনেক ফলোয়ার এবং লাইক আছে সো আপনি আপনার পোষ্টিং এ বা হোম পেজে আমাদের একটা প্রোডাক্ট পাবলিশ করে দেন তো আমি আপনাকে এই পোষ্টিংটার জন্য এই পরিমান পেমেন্ট দিবো। তো আপনি সহজে রাজি হয়ে গেলেন এবং বললেন যে ওকে আপনি পেমেন্ট ক্লিয়ার করেন আমি হ্যাশট্যাগ সহ আপনাকে পোষ্টিং এর লিংক সেন্ড করে দেবো। এখন পরিকল্পনা মাফিক কোন গ্রুপ যারা নিয়মিত আপনোকে নন এনগেজমেন্ট লাইক/ফলো দিয়ে বিব্রত করতাছে বা বিব্রতকর পরিস্থিতিতে ফালাইতাছে তারা কোন একটা প্লাটফর্ম বা প্রাইভেট হোষ্টিং বা প্রাইভেট গ্রুপ থেকে একসাথে হয়ে আপনার পোষ্ঠিং করা লিংক থেকে সমানে লাইক দেয়া শুরু করলো এবং পরিকল্পনা মাফিক লাইক দিয়ে চলে গেলো। আপনি আপনার পোষ্টিং এ কন্ট্রাক্ট মোতাবকে লাইক পাইলেন কিন্তু আপনাকে যে হায়ার করেছে সেই রেষ্টুরেন্টের মালিক তার কোন লাভ হইলো না কারন এই গুলা কোনটাই পোষ্টিং এনগেজমেন্ট ছিলো না। এরা কোন তুতীয় পক্ষ হঠাৎ করে আপনাকে লাইক দিয়ে গায়েব হয়ে গেরো। একবারে যে আপনার পারসোনাল অডিয়েন্স নাই তা কিন্তু না কিছু পারসোনাল ফ্যান ফলোয়ার তো আপনার আগে থেকেই রয়ে গেছে - তারাই হয়তো আপনাকে রিয়েল বেনিফিটা করার ট্রািই করবে। সোশাল মিডিয়ার এই পুরো ব্যাপারটা আপনি এখানে বূজতে পারবেন। 


তো আপনি যদি ফ্রি তে কিছুক্ষন কাজ করার পরে কিছু পয়েন্ট তৈরী করেন  এবং এড সাইট/পেজ অপশনে ক্লিক করেন তাহলে আপনি সবগুলেঅ সোশাল মিডিয়া এ্ড করার বক্স পাবেন। তারপরে আপনি আপনার লাইকি প্রোফাইল বা অন্য যে কোন সোশাল মিডিয়া এড করবেন তার লিংক আপনি প্রথমে বক্স সিলেক্ট করবেন। তারপরে আপনি দেখবেন কোন কোন দেশর জণ্য আপনি সার্ভিস টা সেট করবেন। ওয়ার্ল্ড ওয়ােইড বা কান্ট্রি বেজড। সর্ব্বোচ্চ ৩০ টা কান্ট্রি আপনি এড করতে পারবেন। ৩০ টা কান্ট্রি সিলেক্ট করার পরে আপনি টোটাল ক্লিকস সিলেক্ট করবেন বা ডেইলি ক্লিকস সিলেক্ট করবেন। 


তো এখানে প্রথমে আমি লাইকি ফলোযারস বা ফ্যান এড করলাম। তারপরে ওয়ার্ল্ডওয়াইড সিলেক্ট করলাম। তারপরে একটা টাইটেল দিলাম। তারপরে ইউজারনেম বা আইডি দিলাম যা লাইক প্রোফাইল পেজে আছে। তারপরে ডেইলি ক্কিস সিলেক্ট করে দিলাম ১০। এভাবে প্রতিদিন ১০ টা ফলোয়ার আমার একাউন্টে এড হবে। এখানে প্রকাশ থাকে যে- যারা ম্যানূয়ালি লাইক বা ফলো করবে তাদের প্রোফাইল যদি ডিলেট হয়ে যায় তাহলে আপনার লাইক বা ফলোয়ার সংখ্যাও কমে যাইতে পারে। তবে অভিজ্ঞতা থেকে বলতে পারি সেটা মাত্র ১০%। 


                               


এখানে যতোগুলো সার্ভিস আছে সবগুলোই আপনি এড করতে পারবেন এবং আপনার সোশাল মিডিয়া প্রেজেনস বাড়াতে পারেন। আপনি যদি মনে কারনে আপনি খুবই দামী লোক এই ধরনের কাজ আপনার করা ঠিক হবে না। তাহলে ব্যাপারটা ভুল। আপনি এখানে মিলিয়নার চেলে পেলে দেরকে ও পাবেন- মিলিয়নিয়ার মেয়েদেরকেও পাবেন যারা নিয়মিত এখানে রেগুলার ৭৫ ক্লিক এর কাজ করে। প্রথমত তার কোন না কোন  সার্ভিস এখানে এড করা আছে। তারপরে সে রেগুলার জ্ঞান আরোহন করে এবং নিজেকে তথ্যসমৃদ্ধ করে ফরে টোটাল বিশ্বে সোশাল মিডিয়া প্লাটফর্মে কি হইতাছে না হইতাচে - কি আপডেট আসতাছে সব আপনি জানতে পারবেন। আমার অনেকে নতুস বন্থুও জুটে যাবে। অনেক নতুন ফ্যান ফলোয়ার ও জুটে যাবে। যেমন আমি করেছিলাম আমার ইন্টষ্ট্রাগ্রাম প্রোফাইল নিয়ে অনেক আতে। এখন আমার প্রোফাইল গ্রাজুয়ালি ইনক্রিজিং। প্রতিদিনি ই নতুন নতুস লাইক ফলোযার আসে। নতুন নতুন মানুষের সাথে পরিচিত হই এবং আমার কাছে ভােলো লাগে। এটা প্যাশন থেকে এইটা করা এবং এতো চমতকার মানুসের সাথে দেখা হয় যারা আনইমাজিনেবল। আমার রিকুয়েস্ট যারা এই পোষ্ট টা পড়লেন তারা যার যার তার তার নিজের প্রোফেইলের জন্য করতে পারেন। আপনার প্রোফাইলের কোন ক্ষতি হবে না কারন এইটা এপিআই বেজড। আর এপিআই সোশাল মিডিয়া এলাইড। সবসময়ই মনে রাখবেন হ্যাকারদের পলিসি থাকে গোপন আর ওপেন সোর্স  নেটওয়ার্কে র সবার সবকিছূ থাকে ওপেন। 

এরপরেও যদি আপনার আরো কিছূ জানার থাকে আার সাথে কন্ট্রাক্ট করতে দ্বিধাবোধ করবেন না। আপনি যদি সোশাল মিডিয়া সার্ভিস সেল করতে চান তাহলে আপনি নীচের ভিডিও টা মনোযোগ সহকারে দেখতে পারেন। ২/১ টা সোশাল মিডিয়া ছাড়া বাকী সবগুলোর সার্ভিস ই আপনি বিশ্ব জুড়ে সেল করতে পারবেন। 



আপনি যদি সোশাল মিডিয়িা এক্সচেন্জ বুঝতে পারেন তাহলে আপনি নীচের মার্কেটপ্লেসি রিলেটেড বাংলা ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখে আপনি সোশাল মিডিয়া রিলেটেড সার্ভিস মেক করতে পারবেন এবং সেল করতে পারবেন। আর যদি আপনার আরো কোন হেল্প লাগে তাহলে আমাকে নক করতে পারেন।

Cell/Imo/Whats app: +8801798842170
Email: centjoseph001@gmail.com
Facebook: http://www.facebook.com/masudbcl01
Skype: masudbcl











Marketplace English Tutorial. Freelancing.Outsourcing.

ফ্রিল্যান্সার/মার্কেটপ্লেস/আউটসোর্সিং জগতে পজিটিভ থাম্ব বলতে কি বোঝেন?

ইন্টারনেটে এখন অনেক খানে পজিটিভ থাম্বের ব্যবহার আছে। যে কোন পোষ্টের নীচে অনেক সময় থাম্ব ব্যাপারটা দেখা যায়। আবার অনেকখানে অনেক ওয়েবসাইটে আছে...