Translate

Saturday, December 12, 2020

ফেসবুকের মাধ্যমে ওয়েবসাইটে ট্রাফিক জেনারেট করা।

 ফেসবুকের মাধ্যমে ওয়েবসাইটে ট্রাফিক বা ভিজিটর জেনারেট করা: 



যারা ইন্টারনেট প্রফেশনাল তাদের একটি ওয়েবসাইট নাই এইটা অনেকেই বিশ্বাস করবে না। আপনি ফ্রি ওয়েবসাইট টেকনিক ব্যবহার করে নিজের জন্য একটি ওয়েবসাইট বানিয়ে নিতে পারেন। যেমন : ধরেন: ব্লগার ডট কম আপনাকে একটি ফ্রি ওয়েবসাইট বানাতে সাহায্য করবে। আপনার যদি একটি ফ্রি ওয়েবসাইট থাকে তহালে সেখানে আপনাকে ট্রাফিক বা ভিজিটর আনতে হবে- যারা ভিজিটর হিসাবে আসবে তাদেরকে ওয়েবসাইটে ধরে রাখতে হবে এবং যেনো তারা পুনরায় ভিজিট করে সে রকম কন্টেন্ট রাখতে হবে। এই ভ্যাপারগুলো পিলাপ হলে আপনার ওয়েবসাইটের জনপ্রিয়তা দিন দিন বেড়ে যাবে। আপনি যদি রেগুলার ট্রাফিক বা ভিীজটর আনতে পারেন আর নিজের মন থেকে আসা গল্প , কবিতা এবং ছন্দগুলেঅকে এক করে রাখতে পারেন তাহলে আপনি একসময় কন্টেন্ট মনিটা্িজেশন পেয়ে যাবেন এবং তা ব্যবহার করে আপনি খুব ভালো এমাউন্ট ও উপার্জন করতে পারনে। আমাদের দেশে যারা পপুলার তাদের জন্য খুব সুন্দর একটি ফ্রি টেকনিক নীচে দেয়া আছে। পুরো ভিডিওটি সশয় নিযে দেখলে আপনিও বাজিমাত কলে ফেলাতে পারবেন। আপনাকে আর কাজের জন্য কারো পিছনে পিনে দৌড়াতে হবে না। 






নীচে কিছু পদ্বতি শেয়ার করা হলো যাতে আপনি ফেসবুক ব্যবহার করে ট্রাফিক বা ভিজিটর আনতে পারেন: 



১) ফেসবুকের নিউজ ফিডে নিজের ওয়েবসাইট এড্রস প্রকাশ করা



ফেসবুক যারা এখন ব্যবহার করে তারা সবাই অনেক সতর্ক থাকে। কোন ধরনের আজে বাজে কানেকশন তারা এড করে না। নিজস্ব ফ্রেন্ড সার্কেলের পরিধিও অনেক বড় এইখাকে। এইখানে আপনি সেই অডিয়েন্স টা কাজে লাগাতে পারেন। যেমন: বাংলাদেশে র একজন টিভি অভিনেত্রী প্রায়শই তার লিপ সিংগিং দেন তার পোষ্টে- এর মাধ্যমে সবাই এইটা জানতে পারবে যে: সে একজন ভালো গায়িকা বা মিনিমাম চেষ্টাও করতাছে। এখন আপনি যদি একটি ওয়েবসাইট তৈরী করেন আর সেটা যদি আপনি আপনার নিউজ ফিডে পাবলিশ করেন তাহলে আপনার যারা পরিচিত বন্ধু তারা আপনার ওয়েবসাইটে আসবে। তারা আপনার ওয়েভসাইটরে ভিজিটর হবে। এর মাঝে আপনি আপনার ওয়েবসাইটের জন্য এডসেন্স এ আবেদন করে নিবেন। এডসেন্স  এপরুভাল পাবার পরে একদম নেক্সট এবং ইয়েস মেথডের মাধ্যমে একটি টাকাও খরচ না করে আপনি আপনার ওয়েবসাইটে বা ব্লগে গুগলের মনিটাইজেশণ এড দেখাতে পারবেন। সেখানে আপনরা ভিজিটর রা যখন ভিজিট করবে বা ক্লিক করবে তখন আপনার একাউন্টে ডলার এড হবে। সবচেয়ে বড় ভ্যাপার পুরো বিষয়টা ফ্রি। অনেকেই বলে থাকে: বাংলাদেশে ফ্রি ল্যান্সার থেকে ব্লগার রা বেীশ পরিমান রেমিটেন্স জেনারেট করে কিন্তু কোন নিউজে এরকম কিছু দেখি নাই। তো া্পনিও চাইলে একটা ফ্রি ব্লগার মেক করে সেখানে কিছু কন্টেন্ট এড করে আপনার ভেীরপিকেশণ কে কাজে লাগিয়ে এডসেন্সের জন্য আবেদনি নিয়ে নিতে পারেন। যদি আপনাদের কম্যুনিটি থাকে তাহলে একজন আরেকজনের কন্টেন্ট শেয়ার করেও বিশাল ডলার উপার্জন করতে পারেন কারন যারা নায়ক নায়িকা বা অভিনেতা অভিনেত্রী তাদের অডিয়েন্স আছে সারা বিশ্বের বাংগালী কম্যুনিটিতে। তাার প্রায়শই প্রিয় তারকাদের খোজ খবর নেবার জন্য ইন্টারনেটে আসে এবং তখন আপনার পারসোনাল ব্লগ বা ওয়েভসাইট থাকলে সেখানে আপনি ট্রাপিক বা ভিজিটর জেনারেট করতে পারবেন। এই সরাসিরি ভিীজটর সবচেয়ে দামী ভিজিটর বা ট্রাফিক ওয়েবসাইটের জন্য যা গুগল বিশাল দাম দেয়। যতোবার আপনার ফ্রেন্ডরা বা ফ্যান রা আপনার ওয়েবসাইটে ঢুকবে ততোবার তারা আপনার ওয়েবসাইটের জন্য ভিজিটর বা ট্রাফিক হবে। এইটা জনপ্রতিনিধি - এক কথায় যারা পপুলার তারা সবাই এপ্লাই করতে পারেন। ব্যাপারটা একদম পানির মতোই সহজ। দরকার নিজস্ব ক্রিয়েটিভিটি।



2) হ্যাশট্যাগ জেনারেট করা বা ব্যবহার করা: 


খুব পপুলার হ্যাশট্যাগ যদি আপনি ব্যবহার করেন তাহলে আপনি দেখতে পারবেন আপনার ফেসবুক পোষ্টে সারা বিশ্ব থেকে ভিজিটর বা লাইক কমেন্ট আসতাছে। সেখানেও যদি আপনি আপনার ফেসবুক পোষ্ট ফলোয়ার বা পোষ্ট যারা দেখেছে তাদেরকে আপনার ওয়েভসাএট নিয়ে যেতে পারেন তাহলে সেটা আপনার জন্য হবে গুড লাক। এইখানে কোন টাকা কষ্ট হইতাছে না । কারন আপনি ভেবে দেখেন আপনি যখন ফেসবুক বা ইনষ্ট্রাগ্রাম েটাইম পাম করতাছেন সেখানে আপনার কোন উপার্জন হইতাছে না। নিখাদ মজাই শুধূ কিন্তু সময়টাকে আপনি কাজে লাগাতে পারেন সহজে। হ্যাশট্যাগ েইতাছে এমন একটি মেথড যা সোশাল মিডিয়াতে কন্টেন্ট থুজে পেতে সাহায্য করে সকল সোশাল মিডিয়া ইউজার দেরকে। সহজেই খুজে পাবে আর সহজেই আপনরা ওয়েবসাইটের ভিজিটর বাড়বে। ফেসবেুকের প্রোফাইল মনিটাইজেশন নাই বা গ্ররপ মনিটা্িজেশনও নাই এখনো। কিন্তু ফেসবুক পেজ মনিটা্ইজেশন চাল ু আছে সারা বিশ্বে। সো আপনার প্রোফাইলটাকে আপনি এইভাবে কাজে লাগাতে পারেন। 





৩) ফেসবুক পেজে আপনার ওয়েবসাইট প্রমোট করা: 

আপনার যদি অনেক পপুলার কোন পেজ থাকে তাহলে আপনি সেখানেও পোষ্টিং দিতে পারেন। আপনার একটি পেজে যদি ১ লক্ষ লাইক বা ফলোয়ার থাকে আর আপনি যদি সেখানে একটি ওয়েভসাইট এড্রস পোষ্ট দেন তাহলে কিন্তু আপনি অনেক বড় সড় এনগেজমন্টে করতে পারবেন পেজ থেকে ওয়েবসাইটে। বড় সড় এনগেজমেন্ট বলতে বড় সড় ভিজিটর নাম্বার কে বোঝানো হয়। আর আপনি যদি সেখানে এডসেন্স কে এপ্লাই করেন আর সেখানে আপনার ভিজিটর রা অতি অবশ্যই ক্লিক করবে এবং আপনি সেখান থেকে পার ডে হাজার ডলারও উপার্জন করতে পারবেন কারন আপনার অডিয়েন্স রিয়েল এবং তারা আপনাকে ভালোবেসেই আপনার ফেসবুক পেজকে ফলো করতাছে। তো তাদেরকেও আপনি কাজে লাগাতে পারেন। তারা আপনার পেজে বা প্রোফাইলে আপনার ষ্টোরির সামান্য কিছু হিন্টস পাবে আর বাকীটা পড়ার জন্য তাদেরকে আপনার ওয়েবসাইটে ঢুকতে হবে। এরপরেও নানা ধরেনর অভিজ্থা ও শেয়ার করতে পারেন আপনার ওয়েবসাইটে। যেমন: কোথাও ট্রাবেরকরতে গেলেন- তার ডিটেইলস এটুজেড লিখতে পারেন ব্লগে। সাম্প্রতিক সময়ে ব্লগ করে একটি কাপল আমেরিকার নর্থ ক্যারোলিনা থেকৈ সারা বিশে।বর ১০৫ দেশ ঘূরে ফেলেছে এবং তাদের ফুল উপার্জন ই আসতাছে ইন্টারনেট থেকে। 


৪) ফেসবুকের পুপলার গ্ররপ গুলোতে জয়েন করা: 

প্রথমেই যদি আপনি গ্ররপে জয়েণ করে প্রমোটিং করা শুরু করেন তাহলে গুরপ এডমিন আপনাকে ভ্যান মারবে। আপনারকে আপনার প্রোফাইল বা পেজ সাজাতে হবে আপনার ওয়েভসাইট ইনফরমেশণ দিয়ে। এই সকল নিয়ে পরবর্তী কালে আরো ডিটেইলস জানাবো। থাকতে হবে এবং নিয়মতি চোখ রাখতে হবে আমার ব্লগে। তারপরে আপনি গ্ররপ ডিসকাসন গুলোতে নক করবেন। দরকারি মতামত রাকবেন। দেকবেন আনপার গ্ররপ কমেন্টেসে লাইক কমেন্টের হিরিক পড়ে যাবে এবং তারা আপনার প্রোফা্িলে আসবে। তারপরে সেখান থেকে তারা আপনার ওয়েবসাইটের ভিজিটর হয়ে উঠবে। যে সকল গুরপে মিলিয়নিয়ার মেম্বার আছে সে সকল গুরপ গুলোতে জয়েণ করবেন। যেদিন যে কন্টেন্ট লিখবেন আপনার ওয়েবসাইটে সেদিন সেই রিরেটেড গুরপগুলোতে মুভ করবেন। তাহলে আপনার কন্টেন্ট ভিজিটরের অভাব হবে না।  


(চলবে)

No comments:

Post a Comment

Thanks for your comment. After review it will be publish on our website.

#masudbcl

Marketplace English Tutorial. Freelancing.Outsourcing.

Youtube Payment Proof | #youtubepayment | 22000 views 134$ |

#youtubepayment #youtubepaymentproof 22000 views = 134$ Within an hour a bangla video is coming with the same #youtubepaymentproof . Su...