Translate

Wednesday, December 9, 2020

ইন্টারনেটে কিছূ ভুল ধারনা যা অনেক বিগিনারদের মাঝে কাজ করে। দ্বিতীয় পর্ব।

 গুগল বা যে কোন সার্চ ইন্জিনে সার্চ না করা:




আপনি যে কোন ধরনরে এনড্রয়েড টাচ ফোন ব্যবহার করেন না কেনো: আপনি দেখবেন সেখানে গুগলের একটা চিহ্ন আছে। এন্ড্রয়েড গুগলেরই একটা অপারেটিং সিষ্টেম। আর ইন্টারনেটে বসলে কেউ যে গুগলে সার্চ দিব না িএরকম কখনো শুনি নাই। কিন্তু এখন ম্যাক্সিমাম ই বলতে শুনি: ভাই গুগলে তো সার্চ করি না।  এরকম ভাবে বলতাছে যে: গুগলে বা সার্চ ইন্জিনে সার্চ করা অপরাধ। অথচ ইন্টারনেটের ভাষা আছে: সার্চিং ইজ কেয়ারিং। আপনি যতো বেীশ সার্চ করবেন আপনি ততো বেশী ই জানবেন। এক কথায় সার্চ করা না জানলে আপনি তেমন কোন উপার্জন করতে পারবেন না ইন্টারনেট দুনিয়াতে। আপনি হয়তো জানেন ই না যে: পৃথিবীতে যতো এডভার্টাইজার আছে : তাদের সকলেরই প্রথম টার্গেট থাকে গুগল বা বিশ্বের যে কোন সার্চ ইন্জিনে তার ওয়েবসাইট টা যেনো এক নম্বর পজিশনে থাকে। আমাদের দেশের লোকজন হয়তো আইডিয়াই করতে পারবে না যে: কতো কষ্ট করে গুগলের সার্চ ইন্জিনের ১ নম্বর পজিশনে আসতে হয়।  আপনার যদি যে কোন আননোওন বিষয়ে গুগলে সার্চ করার মেন্টালিটি না থাকে তাহলে আপনি খুব বেশী দিন ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারবেন না। কারন আপনি কোন জিনিস না জানলে তার জন্য গুগল মামা আছে আর এখণ আছে ভিডিও সার্চ ইন্জিন: ইউটিউব। তো নাওয়া খাওয়া ভুলে আপনাকে গুগল মামার সাহায্য নিতে হবে। 



গতানুগতিক ধারাতে সবাই যেভাবে কাজ করতাছে আপনিও যদি সেভাবেই কাজ করে থাকেন তাহলে নিজস্ব স্বকীয়তা রইলো কই? মনে করেন : আপনি জানেন একটা গ্ররপ নিয়মিত বিশ্বের বিভিন্ন ব্যাংক থেকে  টাকা হ্যাক করে। ব্যাংক থেকে হ্যাক করা আর চুরি করা একই কথা। এখন নিজস্ব স্বার্থ  সিদ্বির জন্য তারা এমন এক আজগুবি পদ্বতি তৈরী করলো যার আগা মাথা বা এ টু জেড কেউ কিছূ বুঝলো না। আপনিও জেনে শুনে সেই চোরের দলের সাথে হাত মেলালেন আর বলতে শুরু করলেন : আপনিও ইন্টারনেটে উপার্জন করতাছেন। কিন্তু মাঝরাতে আপনার বুকের মধ্যে খচখচ করে উঠলো। আপনার বিবেক জেগে উঠলো যে: আপনি একজন শিক্ষিত মানুষ। আপনার বাবা মা ন্যায় পরায়ন। আপনি জেনে শুনে চোরের খাতাতে নাম লিখালেন। সামান্য কিছু টাকার জন্য আপনার জীবন টা আপনি হারিয়ে ফেলাইলেন। তাহলে এইটা তো উপার্জন হলো না। উপার্জন হলো সেটাই যেখানে আপনি দিন বা রাত জেগে রিসার্চ করতে করতে নিজস্ব একটা পদ্বতি আডেন্টিফািই করে নিজস্ব স্বকীয়তা বজায় রেখে কাজ করা শুরু করলেন আর সততার সাথে জীবন যাপন করতে থাকলেন। তাহলে এইখানে সততার দামটাই বেশী। 


ধর্মে আছে: চোরের কোন ধর্ম নাই। আর সততাই সর্বোৎকৃষ্ট পন্থা। আর এইখানে হাজার টা কথা র মাঝে একটি বড় কথা হলো : আপনি যদি চোরের দলের নাতে থাকেন তাহলে আপনি কখনোই প্রকৃত সুখ খুজে পাবেন না্ কারন প্রকৃত সুখটা সৃস্টিকর্তা রেখে দিয়েছেন : শুধু সত মানুষের জন্য। যারা চোর তাদের মনের মধ্যেেএকটা কালো রংয়ের আলো সবসময় কাজ করে। গায়ের রং কালো না- মনের রং কালো।  লোকটাকে দেখলেই মনে হবে আপনার চোর। আর সেও চোরের মতো ঘূরে বেড়াবে। যদি কেউ জাইনা ফেলায় বা যদি কখনো ধরা খায় এইরকম একটা মেন্টালিটি কাজ করবে সবসময়।  তাহলে আপনি সততার পথটা যদি খুজে বরে করতে পারেন তাহলে সেটাই হবে আপনার জন্য মংগল। আপনি যদি মনে করেন যে: চুরি করে আপনি বড়লোক হয়ে যাবেন তাহলে মনে রাখবেন দেয়ালের ও কান আছে। দেয়ারের  ওপাশে যারা আচে তারা ঠিকই অপেক্ষা করবে এবং এক সময় একটা মরন কামড় দেবেই।


শুধূ গগুল মামা বলে কথা না: সারা বিশ্বে হাজার হাজার সার্চ  ইন্জিন আছে। একেক দেশে এককে সার্চ ইন্জন বিখ্যাত। বাংলাদেশের জন্য গুগল ডট কম যথেস্ট পরিমান বিখ্যাত। বিশেষ করে গুগলের সার্চ ইন্জিনের উপর ভিত্তি করে বাংলাদেশে হাজারো প্রফেশন আছে। কোন ওয়েবসাইট কে গুগলের ১ নম্বরে নিয়ে আসা, কম্পিটিটিভ কি ওয়ার্ড নিয়ে রিসার্চ করা, কম্পিটিটিভ ওয়েবসাইট কে খুজে বের করা, সেখানে কিওয়ার্ড এনালাইসিস করা, হোয়াইট হ্যাট এসইও করা, কিওয়ার্ড রিসার্চ করা বা ব্যাকলিংক খুজে বের করা, ব্যাকলিংক এনালাইসিস করা আরো নানা ধরনের কাজ করতাছে একণ এসইও ফ্রি ল্যান্সার রা। এসইও ফ্রি ল্যান্সারদের জন্যেএখন আলাদা মার্কেটপ্লেসই আছে হাজারে হাজার। 


আর্টিকেলের শুরূতে যদি আপনি যদি একটি ছবি বা ইমেজ দেখে থাকেন তাহলে বুঝতে পারবেন যে: পৃথিবীতে কতো ভালো ভালো সার্চ ইন্জিন আছে। আপনি তখনি একজন ভালো মানের সার্চ ইন্জিন এক্সপার্ট হতে পারবেন যখন আপনি যে ওয়েবসাইট টাকে র‌্যাংক করানরো চেষ্টা করতাছেন সেটাকে আপনি পৃথিবীর ম্যাক্সিমাম সার্চ ইন্জিনের প্রথম পাতাতে নিয়ে আসতে পারবেন। কারন আপনি যদি সঠিক ভাবে কাজ করতে পারেন তাহলে আপনি অনেক সার্চ ইন্জিনের প্রথম পেজে  আপনার রেজাল্ট নিয়ে আসতে পারবেন। এছাড়াও একজন সার্চ ইন্জিন এক্সপার্ট কতো ধরনের কাজ করে তার নমুনা নিচে দেখানো হলো: 

  1. সার্চ ইন্জিন র‌্যাংক এক্সপার্ট।
  2. সার্চ ইন্জিন পজিশন এক্সপার্ট।
  3. সার্চ ইন্জিন ট্রাফিক জেনারেটর।
  4. সার্চ ইন্জিন র‌্যাংক বিল্ডার।
  5. সার্চ ইন্জিন পেজ র‌্যাংকার। 
  6. সার্চ ইন্জিন কিওয়ার্ড রিসার্চার।
  7. সার্চ ইন্জিন ওয়েবসাইট কম্পিটিটিভ এনালাইসিস এক্সপার্ট।
  8. সার্চ ইন্জিন পেইড ক্যাম্পেইন এক্সপার্ট। 
  9. সার্চ ইন্জিন কিওয়ার্ড কম্পিটিটিভ এনালাইসিস এক্সপার্ট।
  10. সার্চ ইন্জিন ব্যাড লিংক রিমুভাল এবং আরো অনেক। 
তাহলে আপনি এখেন বুঝে দেখেন যে : যদি  আপনি নিয়মিত গুগলের সার্চ ইন্জিন ভিজিট না করেন তাহলে আপনি অনেক ধরনের প্রফেশনালদের ধরতেই পারবেন না বা মেজারই করতে পারবেন না। আপনার মনের মধ্যে খালি খচ খচ করবে যে: এরা িক কাজ করে? তারা কি কাজ করে? এরা কেনো এই ধরেনর কাজ করে? তারা কেনো সেই ধরনের কাজ করে? সব মিলিয়ে আপনি বূজতে পারবেন যে: কনো প্রফেশনের কেমন ভ্যালু। গুগলের সার্চ ইন্জিন একণ অনেক প্রফেশনালদেরকে নিজেরাই সার্টিফায়েড করে থাকে। ২০০৪-২০০৫  সালে MCSE (Microsoft Certified Software Engineer) course এ এনরোল করি- তখন বাংলাদেশের অনেক বড় ভাইরা বলতেছিলো যে: আমার েসটা পড়ার দরকার নাই। কারন সে ব্যাপারে আমি অনেক পড়াই পারি। আমার একমাত্র কাজ হরো ইন্টারনেটে বসে থাকা, তথ্য উদ্বার করা আর বাংলার পরিচিত মানুষকে (যারা চায়) সহায়তা করা। আমি আজো একমনে সেরকই করে যাইতাছি। 


ইন্টারনেটে  আমার প্রায় ৩০০০ ছাত্র আছে যারা আমার কাছ থেকে বিনামূল্যে কাজ শিখে বহু উপরের লেভেলে আছে এখন। কিন্তু আমি কখনো ই চিন্তা করি নাই যে সে আগে বা াইম আগে- কারন এই ইন্ডাষ্ট্রিটাই  আমেরিকার ডলারের নির্দেশনায়। একটা মজার কথা কি জানেন: বিশ্বের কোন নামী দামী টেকনোলজী কোম্পানী কিন্তু হ্যাকার দের জন্য আলাদা কোন কোর্স বা সার্টিফিকেট অফার করে না কারন সব কানেই হ্যাকারদের কে চোর হিসাবে দেখা হয়। বাংলাদেশেও হ্যাকার দের কিরুদ্বে কঠিন আইন আছে।  আপনার বিশ্বাস না হয় আপনার যদি কোন পরিচিত হ্যাকার থাকে তােহলে তাকে সংবাদ সম্মেলনে আইসা বলতে বলবেন যে: সে হ্যাক করে বা সে ঞ্যাকার। দেখবেন বলতে পারবে না কারন সে নিজেই জানে যে: হ্যাকার রা চোর। যেমন: গুগল বা মাইক্রোসফট সার্টিফায়েড কোন হ্যাকার কোর্স  কিন্তু নাই এই বিশ্বে। 


আরো একটা আশ্চর্যের বিষয় কি জানেন: আমি কোন মার্কেটপ্লেসেও কখনো কোন হ্যাকার রিলেটেড পোষ্ট দেখি নাই। সেখঅনে তাদের নামে কোন ক্যাটাগরি নাই। আপনি বিশ্বাস না করলে নীচের ইমেজ থেকে ওয়েবসাইটে ঢুকে ফ্রি রেজিষ্ট্রেশন করে দেখতে পারেন যে: হ্যাকার দের জন্য কোন ক্যাটাগরি আছে কিনা? শুধু মাত্র সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশন এক্সপার্ট রিলেটেড দের নিয়ে একটি মার্কেটপ্লেস যেখানে ধারনা করা হয় প্রায় ১.৫ মিলিয়স প্রফেশনাল স রা তাদের সার্ভিস সেল করে যাইতাছে। যদি একেবারে্ি না বুঝেন তাহলে একেবারে নেীচে ইউটিউবে বাংলা এবং ইংরেজিী টিউটোরিয়াল দেয়া আছে: দেখতে পারেন।

    SEOClerks


No comments:

Post a Comment

Thanks for your comment. After review it will be publish on our website.

#masudbcl

Marketplace English Tutorial. Freelancing.Outsourcing.

Create Email Accounts with Bluehost Server. Create Email for unique doma...

#bluehost #emailaccounts #bluehostdomian #bluehostdomians