Translate

Friday, November 20, 2020

হোয়াইট হ্যাট এসইও -প্রেস রিলিজ। ডিজিটাল মার্কেটিং এর অংশও বলতে পারেন।

 


পৃথিবীতে যতো ধরনের আনুষ্টানিক প্রোগ্রাম হয় সব প্রোগ্রামের একটা করে প্রেস রিলিজ হয়। যেমন: ধরেন গতকালকে জার্মানীতে করোনা ভাইরাসের টিকা বের হয়েছে। জার্মানী এবং যুক্তরাষ্ট্র মিলে প্রায় ৪০০০০ স্বেচ্চাসেবীর উপরে একটা ভ্যাকসিন প্রয়োগ করেছে এবং সেটা ৯০% সফল হয়েছে। এখন জার্মাণীরা সেটা ডিসেম্বর থেকে প্রোডাকশনে নিয়ে আসতাছে । তারপরে সারা বিশ্বে জার্মানীদের কে সেই টিকা বা ভ্যাকিসন দেয়া হবে। এখন এই খবর বৈজ্ঞানিক রা গতকাল কে বা আরো কয়েকদিন আগে একটা সংবাদ সম্মেলন করে জানিয়েছে। কিছু কিছু সাংবাদিক সাক্ষাৎকার আকারেও সেটা জানিয়েছে সবাইকে। আর এ সংক্রান্ত বিষয়ে গবেষনাগার সাংবাদিকদের যে পত্র বা পেপার টা দিবে সেটাকেই প্রেস রিলিজ বলা হয়।  বলা হয়: প্রেস রিলিজ ছাড়া বিশ্বের অনেক কিছুই উদ্বোধন হয় না ঠিকমতো। প্রেস রিলিজটা লিখতে হয় ইন্টারনালি। যারা প্রেস রিলিজ আয়োজন করে তাদের কে প্রেস রিলিজ নোট টা লিখতে হয়। আর যারা লিখতে চায় না তারা প্রফেশনাল কাউকে দিয়ে অর্থের বিনিময়ে লিখিয়ে নেয়। সেটা ও সাধারনত প্রফেশনাল হয়ে থাকে। কেউ যদি নিজেকে অনেক ক্ষমতাবান আর পপুলার মনে করে তবে তাকে প্রেস রিলিজের আয়োজন করে তা জানান দিতে হয় ছলে বলে কৌশলে, যে কান উপায়ে। একজন লোক ১৯৮৮ সাল থেকে নিজেকে অনেক পপুলার আর অনেক ক্ষমতাবান মনে করে। সে কখনো নিজেকে প্রকাশ করে না। তার কোন সামাজিক যোগাযোগ ওয়েবসাইট প্রোফাইল বা একাউন্ট ও নাই। সে একজন লোককে মনে মনে ফলো করে। সেই লোকটা অনেক পপুলার। সে নিয়মিত আপডেট দেয় বা এক ধরনের সোশাল মিডিয়া প্রেস রিলিজ দেয় ছোট ছোট নোটের মাধ্যমে। কিন্তু সেই প্রথম জন নিজেকে পুরুষ ভাবলেও বোরখা পড়া মহিলার মতো আচরন করে। সোশাল মিডিয়া তে একাউন্ট ওপেন করে না,   ব্লগ নাই কোন, পারসোনাল কোন ওয়েবসাইট নাই এবং কোন পরিচিতিও নাই। শুধূমাত্র একটা প্যারাসাইট লেভেলের সোসাইটি সে মেইনটেইন করে চলে - অনেকটা ফকিরাপনা বা ধার দেনা টাইপের সমাজে। তো এখন যদি সেই লোক কোন সংবাদ সম্মেলন আয়োজন না করে বা যদি সাংবাদিক দের নিজের ছবি না দেখায় তাহলে তাকে কেউ দুনিয়াতে ক্ষমতাবান মনে করবে না- তার ক্ষমতা বা পাওয়ারের কোন দাম বিশ্বে কেউ দেবে না। 


[জানা মোতাবেক ইন্টারনেট দুনিয়াতে শুধূ মাত্র নবীজিদের ছবি তোলা যায় না। যেমন: জীবিত শেষ নবী হযরত ঈসা (আ:) নবী।  পবিত্র কোরানে লেখা উনি জীবতি। সৃষ্টিকর্তা তাকে চতুর্থ আসমানে তুলে নিয়ে গেছেন। প্রতিনিয়ত অনেকেই তাকে মনের চোখে দেখে, ভালোবেসে যীশু বলে যাকে এবং ্ও বিশ্বাস করে যে: উনি নিয়মিত পৃথিবীতে আসা যাওয়া করেন(যেহেতু উনি নব্যুয়ত প্রাপ্ত নবী এবং দুনয়িাতে মহানবী ছিলেন)।তাই উনাকে ক্যামেরাতে ধরার জণ্য সারা বিশ্বে স্যাটেলাইট সেট করা আছে (প্রতি ইঞ্চি এবং প্রতি সেকেন্ডে) আর সারা বিশ্বে তার ভক্ত রা তাকে ভালোবেসে অপেক্ষা করে যে উনি একদিন ক্যামেরাতে ধরা দেবে। লম্বা, ফর্সা, মুখে দাড়ি, ৬ ফিট ২ ইঞ্চি লম্বা , লম্বা কাপড় পরিহিত, আলোর ভান্ডারী, জেরুজালেমের বেথেলহামে জন্ম, হয়রত মরিয়ম আ: এর সন্তান, আজকে থেকে ২০০০ বছর আগে জন্ম, পবিত্র ধর্ম বই ইন্জিলের গ্রহীতা, খ্রীষ্টান ধর্মের জনক, সর্বোপরি সৃষ্টিকর্তার দরবার থেকে ওহী বা নব্যুয়ত প্রাপ্ত নবী হয়রত ঈসা মসীহ (আ:)  এরকম একজন কে ঈসা নবী ভেবে মানুষজন তাকে প্রতিনিয়ত ভালোবেসে যাইতাছে। তাছাড়া নবীজিরা নব্যুয়তের আলোতে সমৃদ্ব থাকে- তাই উনাদেরকে ক্যামেরাতে ক্যাচ করা যায় না বলে শুনেছি।] 




আমরা মানুষ। আমাদের প্রত্যেকের একটা আইডেন্টিটি আছে। প্রয়োজেন আমাদের ছবি তোলাও জায়েজ এবং ইন্টারনেটের দুনিয়াতে প্রতিদিন ১০/১২ টা ছবি না তুললে নিজেকে সেলফি ষ্টার ও লাগে না। তো এইখানে কোন প্রোডাক্ট লঞ্চ করতে গেলে আমাকে অবশ্যই ক্যামেরা শো এর আয়োজন করতে হবে- সাংবাদিকদের কল করতে হবে এবং সেখানে প্রোডাক্ট লঞ্চ হয়ে গেলে সেটার ব্যাপারে একটা প্রেস রিলিজ নোটও দিতে হবে। সেই প্রেস রিলিজটা ইন্টারনেটে প্রকাশ করতে হয়। তখণ সারা বিশ্বের সকলে জানে। সেই টাকে প্রেস রিলিজ নোট বলে। এই প্রেস রিলিজ সাধারনত ৫০০ শব্দের মধ্যে হয়ে থাকে বা আপনি চাইলে ৫০০০ শব্দের মধ্যেও করতে পারবেন তবে হোযাইট হ্যাট এসইও এর সকল নিয়ম বজায় রাখতে হবে। কারন আপনি যদি এসইও নিয়ম মোতাবকে প্রেস রিলিজ না লিখেন তাহলে সেটা ইন্টারনেটে বিভিন্ন সার্চ ইন্জিন শো করবে না। সেই ক্ষেত্রে আপনার পোডাক্ট প্রমোশন ও হবে না। প্রেস রিলিজ হোযাইট হ্যাট এসইও- অফ পেজ অপটিমাইজেশন বা বর্তমানে ডিজিটাল মার্কেটিং এর একটি কাজ বলে ধরে নেয়া হয়। পৃথিবীতে লক্ষ লক্ষ প্রেস রিলিজ সাবমিশন ওয়েবসাইট আছে। যারা প্রেস  রিলিজ লিখে তাদের কে প্রেস রিলিজ রাইটার বলে। আর যারা সাব মিট করে প্রেস রিলিজ ওয়েবসাইটে বা যেকোন ওয়েবসাইটের প্রেস রিলিজ সেকসানে তাদের কে প্রেস রিলিজ সাবমিটার বলে। 


প্রেস রিলিজেএর ভেতরেও আপনি ব্যাকলিংক বা লিংকবিল্ডিং করতে পারবেন। হোয়াইট হ্রাট এসইও তে পেজ র‌্যাংক বাড়ানোর জন্য যে যে টেকনোলজী গুলো ব্যবহার করে লিংক বিল্ডিং বা ব্যাকলিংক করা হয় তার মধ্যে পেস্র রিলিজ সাবমিশন একটি। আপনি যদি কোন ওয়েবসাইটে প্রেস রিলিজ সাবমিশন করেন আর সেই ওয়েভসাইটরে পেজ র‌্যাংক যদি হাই হয় ৮/৯ বা ১০ , তাহলে সেখানে প্রেস রিলিজের ভেতরে যদি আপনি দরকারি কিওয়ার্ড কে হাইপারলিংক করেন বো ব্যাকলিংক করে লিংকবিল্ডিং করেন তাহলে সেই উচ্চ মানের পেজ র‌্যাংকের ওয়েবসাইট আপনার ওয়েবসাইট বা কিওয়ার্ডের ভেতরে থাকা যে ওয়েবসাইট সেই ওয়েবসাইট কে অকে পরিমান ট্রাফিক বা ভিজিটর সাপোর্ট দেবে বিভিন্ন উৎস বা সোর্স থেকে। ২০১০ সালের আগে কোন ওয়েবসাইট কে র‌্যাংকে আনার জন্য আমরা মিনিমাম ৫০ টা প্রেস রিলিজ করতে বলতাম যে কাউকে। এখন ম্যাক্সিমাম পেইড পোষ্ট হয়ে গেছে। যেমন: ধরেন: ২০১০ সালের আঘে ওয়াশিংঠন পোষ্টে আপনার একটা একাউন্ট ছিলো। সেটা এখনো একটিভ আছে। আপনি চাইরে যে কোন নিউজ সাবমিটও করতে পারবেন। ওয়াশিংটন পোষ্ট যদি সেটাকে এপরুভাল দেয় তাহলে সে রকম একটা পোষ্টের জণ্য আপনি প্রায় ৩০০ ডলার চাইতে পারেন যে কারো কাছ থেকে কারন পত্রিকাটার নাম ওয়াশিংটন পোষ্ট। High Page Rank ওয়েবসাইট গুলোতে ব্যাকলিংক বা লিংক বিল্ডিং করতে গেলে আপনি প্রেস রিলিজের সাহায়্য নিতে পারেন কারন প্রেস রিলিজ সাবমিশন ওয়েবসাইট গুলো High Page Rank বেজড এ হয়। 

আপনি চাইলে একজন প্রেস রিলিজ রাইটার বা সাবমিটার হিসাবে ফ্রি ল্যান্সার/মার্কেটপ্লেস/আউটসোর্সিং জগতে আপনার কাজ শুরু করতে পারেন। এজন প্রেস রিলিজ রাইটার হিসাবে আপনি ১০০ মব্দের জন্য মিনিমাম ১০ ডলার উপার্জন করতে পারবেন। সেই হিসাবে যদি ৫০০০ শব্দের ওয়েবসাইট হয় তাহলে প্রায় ২৫০ ডলার এর উপার্জন। আর আপনি যদি একজন সাবমিটার হোন বা হতে পারেন তাহলে সেই পেইড ভারসন এ সাবমিট করার জন্যও আপনি আলাদা একটি চার্জ নিতে পারবেন। পৃথিবীর সবচেয়ে দামী দামী প্রেস রিলিজ ওয়েবসাইট গুলোর সদস্য পদ গ্রহন করে সেখানে প্রেস রিঝি সাবমশিনের অফার আপনি যে কোন মার্কেটপ্লেসে দিতে পারেন। আশা করি আপনি সফল হবেন। নীচের ওয়েবসাইটে আপনি ফি রেজিষ্ট্রেশন করে ও একজন প্রেস রিলিজ রাইটার বা সাবমিটিার এর কাজ শুরু করতে পারবেন এবং আপনার নিজের জণ্য রেভিনিউ বা দেশের জণ্য রেমিটেন্স নিয়ে আসতে পারবেন। 

SEOClerks


No comments:

Post a Comment

Thanks for your comment. After review it will be publish on our website.

#masudbcl

Marketplace English Tutorial. Freelancing.Outsourcing.

ফ্রি ল্যান্সার দের একটি আইডি কার্ড কখন দরকার ছিলো?

আগামীকাল থেকে বাংলাদেশ সরকারের প্রযুক্তি মন্ত্রনালয় দেশের শীর্ষস্থাণীয় ফ্রি ল্যান্সারদের কে ভার্চুয়াল আইডি কার্ড দেবার কথা ঘোষনা করেছে। অনলা...